নভেল করোনা ভাইরাস এর জীনতত্ত্বের বিশ্লেষণ সম্পন্ন করলো নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি

গত বছরের শেষের দিকে চীনের উহান প্রদেশ থেকে সংক্রমণ এর সূত্র ধরে আজ বিশ্বব্যাপী কোভিড-১৯ মহামারী তীব্র আকার ধারণ করেছে। এ যাবৎকালে ১৮০ টিরও বেশী দেশে এই সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়েছে যাতে প্রায় ২১ কোটির ও বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন, মৃত্যুবরণ করেছেন সাড়ে সাত লক্ষেরও কিছু বেশী। বিশ্বজুড়ে বিজ্ঞানী এবং গবেষকরা এই মহামারীটির বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য রোগজনিত ভাইরাস সম্পর্কিত দরকারী তথ্য আবিষ্কার করার উদ্দেশ্যে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। পাশাপাশি তাঁরা কার্যকর একটি ভ্যাকসিন তৈরির জন্যও কাজ করছেন যা ভাইরাসের বিস্তার এবং রোগের তীব্রতা হ্রাস করবে। বর্তমানে ২৯ টি ভ্যাকসিনের কার্যকারিতার পরীক্ষা করা হচ্ছে এবং আরও অনেকগুলি ক্যান্ডিডেট ভ্যাকসিন পাইপলাইনে রয়েছে।

কোভিড-১৯ এর জন্য দায়ী ভাইরাসটি মূলত একটি নতুন ধরনের করোনাভাইরাস (নভেল করোনাভাইরাস), যা ইতোপূর্বে সার্স (SARS) এবং মার্স (MERS) এর মত অসুখের জন্য দায়ী ছিলো। ধারণা করা হয়ে থাকে বাদুড় এবং প্যাঙ্গোলিন থেকে এই ভাইরাসটির উৎপত্তি। শুরুর দিকে এর বিস্তার এসব প্রানী থেকে হলেও অতিদ্রুতই ভাইরাসটি মানুষ থেকে মানুষে সংক্রমনের ক্ষমতা অর্জন করে। অতিমাত্রায় পরিবর্তনশীল এই ভাইরাসটির জিনোম বিশ্লেষণ করে বিজ্ঞানীরা অনেকগুলো মিউটেশন চিহ্নিত করতে পেরেছেন। জিনোম বা ভাইরাসের জিনগত তথ্য বিশ্লেষণ এর মাধ্যমে বিজ্ঞানীরা বিভিন্ন ভাইরাস এর উৎপত্তি এবং এর বিভিন্ন বৈশিষ্ট্য (রোগ সংক্রমণ ও বিস্তার সংক্রান্ত) সম্পর্কে অবগত হতে পারেন। এছাড়াও ভাইরাসের জেনেটিক মিউটেশনের ফলে এর প্রোটিনে পরিবর্তন আসতে পারে বিধায়, ভ্যাকসিন প্রস্তুতিতেও এই বিশ্লেষণের ভূমিকা অপরিসীম।

সম্প্রতি নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির জিনোম রিসার্চ ইন্সটিটিউট (নর্থ সাউথ জিনোম রিসার্চ ইন্সটিটিউট) সফলতার সাথে নভেল করোনা ভাইরাসের জিনগত বিশ্লেষণ সম্পন্ন করেছে। নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির এই ইন্সটিটিউট জিনোমিক গবেষণায় শ্রেষ্ঠত্বের কেন্দ্র হয়ে উঠে জিনোমিক মেডিসিনে অগ্রগতির মাধ্যমে উপমহাদেশ এবং বিশ্বজুড়ে মানুষের স্বাস্থ্যের উন্নতিতে অবদান রাখার উদ্দেশ্য নিয়ে যাত্রা শুরু করে ২০১৭ সালের মে মাসে। এই গবেষণা কাজটির নেতৃত্বে ছিলেন স্কুল অফ হেলথ অ্যান্ড লাইফ সাইন্স এর ডিন (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যাপক ডঃ হাসান মাহমুদ রেজা এবং নর্থ সাউথ জিনোম রিসার্চ ইন্সটিটিউট এর পরিচালক এবং বায়োকেমেস্ট্রি ও মাইক্রোবায়োলজি ডিপার্টমেন্ট এর সহকারী অধ্যাপক ডঃ মুহাম্মদ মাকসুদ হোসেইন।

বাংলাদেশে অবস্থিত বেসরকারী বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটিই সর্বপ্রথম কোভিড ১৯ এর জন্য দায়ী নভেল করোনা ভাইরাসের জীনতাত্ত্বিক বিশ্লেষণ সম্পন্ন করলো। এ প্রসঙ্গে ডঃ হাসান মাহমুদ রেজার সাথে কথা বলে জানা যায়, নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের জিনোম রিসার্চ ইন্সটিটিউট এ অর্জনে গর্বিত এবং দেশে বিরাজমান মহামারীর মত স্বাস্থ্য সমস্যার সময়ে এই গুরুত্বপূর্ণ গবেষণার মাধ্যমে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিগত উন্নতিতে অবদান রাখতে পেরে তারা আনন্দিত। তারা আশাবাদী এর ফলাফল ভ্যাকসিন প্রস্তুতির ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে পারবে এবং এই গবেষণার ফলাফল বিশ্ববিদ্যালয়টির সামগ্রিক গবেষণার মানকে অনেকাংশে উন্নীত করবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *